লকডাউন-এর সময় কলকাতার শিশুদের ভিটামিন এ ফর্টিফায়েড দুধের প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে আইটিসি’র আশীর্বাদ স্বস্তি - Songoti

লকডাউন-এর সময় কলকাতার শিশুদের ভিটামিন এ ফর্টিফায়েড দুধের প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে আইটিসি’র আশীর্বাদ স্বস্তি

Share This
আশীর্বাদ স্বস্তি, আইটিসি লিমিটেডের তাজা ডেয়ারি পোর্টফোলিও কলকাতার দুঃস্থ শিশুদের জন্য নিজের ভিটামিন-সমৃদ্ধ দুধের সরবরাহে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়েছে। আশীর্বাদ স্বস্তি তার দুধের সরবরাহ করবে তিনটি এনজিও-এর নেটওয়ার্কের মাধ্যমে- সেভ দ্য চিলড্রেনহোপ কলকাতা ফাউন্ডেশন এবং এসওএস চিলড্রেন’স ভিলেজ ইন্ডিয়াকলকাতার বহু দুঃস্থ পরিবার এবং অনাথ শিশুদের সঙ্গে এদের যোগাযোগ রয়েছে। ভিটামিন এ ফর্টিফায়েড আশীর্বাদ স্বস্তি দুধ ঘোষিত লকডাউন পর্যন্ত দেওয়া হবে।
আইটিসি ফুড তার নিজস্ব দুধের সম্ভারের ভিটামিন ফর্টিফিকেশন শুরু করে 2019 সালের ডিসেম্বরে। দুধের ভিটামিন ফর্টিফিকেশন হল এমন এক কার্যকরী পদ্ধতি যা ঘাটতি পূরণ করেবিশেষত শিশুদের তাদের প্রতিদিনের প্রয়োজনীয় ভিটামিনের প্রয়োজনীয়তা অর্জনে সক্ষম করার সময়। ভিটামিন এ হল একটি অতি প্রয়োজনীয় মাইক্রোনিউট্রিয়েন্ট এবং শিশুদের মধ্যে রোগ প্রতিরোধ বৃদ্ধিতে সহায়ক হিসেবে পরিচিত। 

উদ্যোগ সম্পর্কে মন্তব্য করে, আইটিসি লিমিটেডের চিফ অপারেটিং অফিসার- ডেয়ারি ও বেভারেজেস, মিঃ সঞ্জয় সিংগাল বলেন, দুধ শিশুদের পুষ্টি সরবরাহের অন্যতম সেরা রূপ হিসেবে পরিচিত। অনেকেই আছে যাদের ভিটামিন এবং অন্যান্য মাইক্রো নিউট্রিয়েন্ট সমৃদ্ধ খাবার উত্সগুলিতে পর্যাপ্ত সহজলভ্যতা নেই যা তাদের রোগ প্রতিরোধক শক্তি বজায় রাখার পাশাপাশি তাদের প্রতিদিনের পুষ্টির প্রয়োজনীয়তা যোগানে সহায়তা করে। একটি শক্তিশালী রোগপ্রতিরোধক শক্তি  শিশুদের বাহ্যিক দুর্বলতার বিরুদ্ধে লড়াই করতে সহায়তা করে। আমরা শিশুদের আশীর্বাদ স্বস্তির ভিটামিন-এ সমৃদ্ধ দুধে নিরবচ্ছিন্ন  সরবরাহের মাধ্যমে তাদের পুষ্টির প্রয়োজনীয়তাগুলিকে সমর্থন করার ক্ষেত্রে অর্থবহ অবদান রাখার আশা করি।"
প্রয়াস সম্পর্কে মন্তব্য করে, সেভ দ্য চিলড্রেন্স-এর ডিরেক্টর- প্রোগ্রামস ও পলিসি, অনিন্দিত রায় চৌধুরি বলেন, "দুধ একটি শিশুর খাদ্য তালিকায় প্রতিদিন প্রয়োজনীয় এবং তাদের অসুস্থতা থেকে রক্ষা করতে সহায়তা করে। এই প্রচেষ্টাটি আমাদের সকলের পক্ষে অত্যন্ত প্রশংসাযোগ্য। আশীর্বাদ স্বস্তি / আইটিসি ফুডস কলকাতার শিশুদের জন্য যে অর্থবহ অবদানের প্রস্তাব দিয়েছে তার জন্য আমরা কৃতজ্ঞ।"
প্রোগ্রাম সম্পর্কে, হোপ কলকাতা ফাউন্ডেশন-এর ডিরেক্টর, মিস গীতা ভেঙ্কডাকৃষ্ণানা বলেন, “লকডাউন শিশুদের পুষ্টিকর খাবার সরবরাহ করাকে একটি চ্যালেঞ্জ হিসেবে প্রয়োজনীয় সামগ্রী গ্রহণের প্রক্রিয়াটিকে ধীর করেছে। আশীর্বাদ স্বস্তি দুধ সরবরাহ করে এই দীর্ঘ মেয়াদের  মোকাবিলা করেছে। এই উদ্যোগটি অবশ্যই সব শিশুদের তাদের স্বাস্থ্য এবং পুষ্টি সমর্থন করে সহায়তা করবে।
জোটবদ্ধ হওয়া সম্পর্কে মন্তব্য করে, এসওএস চিলড্রেনস ভিলেজ অফ ইন্ডিয়া মুখপাত্র ও সেক্রেটারি জেনারেল, মিঃ সুদর্শন সুচি বলেন, “শিশুদের সামগ্রিক রোগ প্রতিরোধক ক্ষমতা শক্তিশালী করার জন্য প্রতিদিন দুধের প্রয়োজন। আমরা আনন্দিত যে আশীর্বাদ স্বস্তি/আইটিসি খাবারগুলি এই কঠিন সময়ে যখন স্বাস্থ্যকর প্রতিরোধ ব্যবস্থা বজায় রাখা জরুরি ঠিক তখনই শিশুদের সহায়তা করতে এগিয়ে এসেছে।

No comments:

Post a Comment

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here

Pages