মহকুমা প্রশাসনের দ্বারস্থ বাসিন্দারা - Songoti

মহকুমা প্রশাসনের দ্বারস্থ বাসিন্দারা

Share This
দেবাশিস ঘোষ  , চাঁচল : লোকালয়ের মধ্যে পোলট্রি ফার্ম নির্মাণ করা হচ্ছে । দূষিত হবে এলাকার পরিবেশ। অভিযোগ তুলে বাসিন্দাদের একাংশ আন্দোলনে নেমেছেন। মালদহের চাঁচল- ১ ব্লকের খরবা পঞ্চায়েতের গোপালপুর ( দাস পাড়া ) এলাকার ঘটনা। তাদের অভিযোগ , পোল্ট্রি  ফার্ম থেকে দুর্গন্ধ ছড়ায়। আর তা থেকে পরিবেশ দূষণের যথেষ্টই আশঙ্কা রয়েছে। জনবসতিপূর্ণ এলাকায় পোলট্রি ফার্ম হলে দূষণে এলাকার মানুষজনসহ শিশুরাও আক্রান্ত হবে। ব্লক প্রশাসনের কাছে চলতি বছরের এপ্রিল মাস নাগাদ অভিযোগ করা হলে ব্যবসায়ীরা কাজ বন্ধও করে দেয়। কিন্তু তারা পরিবেশ দূষণের বিষয়টিকে অগ্রাহ্য করেই  আবার ওইস্থানে  পোল্ট্রি ফার্মের নির্মাণের কাজ শুরু করেছে। চাঁচলের মহকুমা শাসকের কাছেও  অভিযোগ জানান হয়েছে। চাঁচলের এসডিও সব্যসাচী রায় বলেন , " বাসিন্দাদের অভিযোগ পেয়েছি। বিডিও ও আইসিকেও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।"     

                                                               স্থানীয় বাসিন্দা রেজাউল করিম , পারুল সেখ ও আনিরুল হকদের অভিযোগ , " পোলট্রি ফার্ম থেকে দুর্গন্ধ ছড়ায় | ওই থেকে পরিবেশ দূষণের যথেষ্ট আশঙ্কা রয়েছে। জনবসতিপূর্ণ এলাকায় পোলট্রি ফার্ম হলে দূষণে এলাকার মানুষজনসহ শিশুরাও আক্রান্ত হবে |পঞ্চায়েত , ব্লক ও মহকুমা প্রশাসনের কাছে আমাদের আবেদন জনবসতিপূর্ণ এলাকায় পোল্ট্রি ফার্ম করার অনুমতি যেন না দেওয়া হয়। পাড়ার মধ্যে যেন পোল্ট্রি ফার্ম যেন না হয় আবেদন জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট এলাকার ছাত্রছাত্রীরাও । যদিও ওই ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে , সেখানে পোল্ট্রি ফার্ম করা হচ্ছেনা। তাই পরিবেশ দূষণের আশঙ্কাও নেই। ব্যবসায়ী আব্দুল কুদ্দুস , আব্দুল মালেক একযোগে জানালেন , " আমরা দুই বন্ধুও স্থানীয় বাসিন্দা। ইমামপুরের দুলালও আমাদের বন্ধু| আমরা ৩ বন্ধু মিলে এখানে বাগানের একপাশে ব্যবসা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আগেই জানিয়ে রাখি , এখানে কিন্তু আমরা পোল্ট্রি  ফার্ম করবনা। পোল্ট্রি  ফার্ম লোকালয়ে করা যায়না। গ্রামের বাইরেই করা হয়। আমরা জানি ওই ধরনের ফার্ম থেকে দুর্গন্ধ ছড়ায়।  দূষণও হতে পারে ।" তিনি আরও বলেন , " আমরা এখানে ক্যাম্বেল হাঁসের বাচ্চা উৎপাদন করব। ৫দিনের মাথায় সেইগুলি বাজারজাত করা হবে। পাশাপাশি  ২৫টি গাভী থাকবে এখানে। ৪০০ ছাগল , দেশী মুর্গিও পোষা হবে। মাছ চাষ করারও ইচ্ছে আছে। হ্যাচারি করা হবে। এইগুলি দেখভাল করার জন্য স্থানীয়দেরও নেওয়া হবে। তাদের কর্মসংস্থানের সুযোগ থাকছে ।"

No comments:

Post a Comment

Pages