খাঁটি বাঙালির ঝাঁঝ ৩ শিল্পীর আড্ডায় - Songoti

খাঁটি বাঙালির ঝাঁঝ ৩ শিল্পীর আড্ডায়

Share This
সপ্তর্ষি সিংহ,কলকাতাঃ বাঙালি যেমন ভোজন রসিক তেমন আড্ডা প্রিয়। রাজনীতি থেকে খেলাধূলা কিংবা আলোচনা থেকে সমালোচনা চায়ের কাপে তুফান তোলা ঝড়ে কোন কিছুই বাদ যায় না বাঙালির আড্ডায়। যদিও ব্যস্ততার কারনে সেই সময়টা এখন ক্রমশই হারিয়ে যাচ্ছে। তবে এর মাঝেই আড্ডার 
এমন এক সুযোগ তৈরী হল শহরের এক রেস্তোরাঁয়। খাঁটি বাঙালির ঝাঁঝ এই বিষয়টা আমার আপনার কাছে নানান মত কিন্তু তিন শিল্পীর কাছে কেমন সেই নিয়ে এক আড্ডার আসর। বাজারে নামী রান্নার তেল প্রস্তুতকারক সংস্হা ইমামীর উদ্যোগে তিন খ্যাতনামা তারকার আড্ডার বিষয় ছিল ‘খাঁটি বাঙালি ঝাঁঝ দিয়ে যায় চেনা’। শহরের এক পাঁচতারা রেস্তোরাঁয় বর্ষীয়ান অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, বাঙালির প্রিয় ফেলুদা ওরফে সব্যসাচী চট্টোপাধ্যায় এবং নির্দেশক ও অভিনেত্রী চূর্নী গাঙ্গুলী এবং সঞ্চালক এর ভূমিকায় আডা দিলেন মধুমন্তী। আড্ডার বিষয় যখন বাঙালির ঝাঁঝ তখন বাঙালিয়ানার অন্যত্তম সৌমিত্র বাবু ছাড়া সেই স্বাদ সবথেকে ভালো কে বুঝবেন। উল্ল্যেখ সংস্হার পক্ষ থেকে একটি নতুন টিভিসি শুটিং এর জন্য এই তিন তারকা কে একত্রিত করে আড্ডার সংযোজন।  কথা প্রসঙ্গে সৌমিত্র বাবু জানান এই ঝাঁঝ দিয়েই তো বাঙালিয়ানা কে চেনা যায়। খাদ্যের সাথে জড়িত বাঙালি তার নিজস্ব আভিজাত্য নিয়ে বেঁচে রয়ছে। বর্তমান সময়ে পাশ্চাত্যের খাদ্যের প্রভাবে কী বাঙালী খাদ্যের স্বাদ হারিয়ে যাচ্ছে?এই প্রসঙ্গে ফেলুদা বলেন আমরা এখন হরেক স্বাদের খাদ্য রসিক ঠিকই কিন্তু 
বাঙালিয়ানার খাওয়ার আমার সবথেকে বেশী পচ্ছন্দের। এই প্রশ্নের উত্তরে আবার চূর্নী গাঙ্গুলি বলেন,আমি বাইরের খাওয়ারের থেকে নিজে হাতে বাঙালি রেসিপি তৈরী করতে এবং খেতে বেশী পচ্ছন্দ করি। বাঙালির কাছে খাঁটি ঝাঁঝ কী? এই প্রশ্নের উত্তরে ফেলুদা বলেন, এটা বাঙ্গালীর নিজস্বতা যা কখনও সরিয়ে ফেলা যায়না। প্রবাসী বাঙালিও এই আভিজাত্য বজায় রেখে চলছে। সর্ষে ইলিশ কিংবা ঝালমুড়ি প্রত্যেকটা বাঙালির ঝাঁঝ জড়িয়ে রয়ছে। চূর্নী জানান মাস্টারড ওয়েল আমাদের বাঙালি রাণ্ণার সাথে জড়িয়ে রয়ছে। বিভিন্ন বাঙালি রেসিপি সর্ষের তেল ছাড়া তৈরী করা অসম্ভব। সৌমিত্র বাবু বলেন, আমি সবসময় খাদ্যের প্রতি আকৃষ্ট সুতরাং এই টিভিসি শুটিংয়ে এসে প্রত্যেক রেসিপি আমার বেশ সুস্বাদু লেগেছে। ইমামী ব্র্যাণ্ডের ভাইস প্রেসিডেন্ট দেবাশীষ ভট্টাচার্য বলেন বাঙালির রান্নাঘরে মাস্টারড ওয়েল একটি অন্যত্তম। বাঙালির রান্নার রেসিপিতে উল্ল্যেখ সুতরাং ইমামী ফ্রেশ এবং উৎকৃষ্ট মানের তেল প্রস্তুত করে থাকে। কিছু বছর আগে প্রচারের স্বার্থে ট্যাগলাইন ছিল বাঙালির চোখে জল কেন?তা জনপ্রিয়তা লাভ করায় এইবার নতুন রুপে টিভিসি খাঁটি বাঙালী ঝাঁঝ দিয়ে যায় চেনা।।

No comments:

Post a Comment

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here

Pages