ডিউরেক্সের নেতৃত্বে দ্য বার্ডস অ্যান্ড বীস টক বিশ্ব হেপাটাইটিস দিবস উদযাপন করছে - Songoti

DEBI SAMMAN ADVERTISEMENT

ডিউরেক্সের নেতৃত্বে দ্য বার্ডস অ্যান্ড বীস টক বিশ্ব হেপাটাইটিস দিবস উদযাপন করছে

Share This

 গ্যাংটক: কনজিউমার-হেলথকেয়ারের ক্ষেত্রে গ্লোবাল লিডার, রেকিট-এর উদ্যোগে দ্য বার্ড অ্যান্ড বীস টক কর্মসূচির মাধ্যমে আজ উত্তর-পূর্ব ভারতের ছয় রাজ্য - সিকিম, অরুণাচল প্রদেশ, নাগাল্যান্ড, মেঘালয়, মণিপুর এবং মিজোরামে বিশ্ব হেপাটাইটিস দিবস উদযাপন করা হল। এই উপলক্ষটি স্মরণীয় করে তুলতে ডিউরেক্সের নেতৃত্বে 'দ্য বার্ডস অ্যান্ড বিস টক` (টিবিবিটি)-এর মাধ্যমে ছাত্র, শিক্ষক ও বিশেষজ্ঞদের সাহায্যে সমাজের বিভিন্ন মানুষের মধ্যে এই রোগ সম্পর্কে সচেতনতা গড়ে তুলতে ওয়েবিনার কর্মসূচি নেওয়া হয়।


 

এই বছর ‘হেপ ক্যান্ট ওয়েট’, আন্তর্জাতিক থিমকে তুলে ধরে ২০৩০ সালের মধ্যে জনস্বাস্থ্যের হুমকিস্বরূপ হেপাটাইটিসকে নির্মূল করার জন্য প্রয়োজনীয় প্রচেষ্টার জরুরিতার কথা তুলে ধরা হয়েছে যার সাহায্যে প্রায় ৩৬ মিলিয়ন সংক্রমণ প্রতিরোধ করা এবং ১০ মিলিয়ন জীবন বাঁচানো সম্ভব হতে পারে।

 

ওয়েবিনারে সম্মানিত অতিথি বক্তাদের মধ্যে ছিলেন - ডায়ানা খুমান্থেম (আইএএস, ডিসি ইম্ফল পূর্ব, মণিপুর) উত্তর-পূর্বের আইএএস অফিসার, মিসেস কোইং স্যামন উম্বন (ডিডিএসই, নামসাই), একজন শিক্ষাবিদ এবং সমাজকর্মী, প্রাক্তন এডিইও - সহকারী জেলা শিক্ষা অফিসার এবং বর্তমানে মহিলা অধিকার ও উন্নয়নের জন্য কাজ করছেন, ডাঃ টোপে যোমচা (ডিআরসিএইচও- জেলা প্রজনন শিশু স্বাস্থ্য আধিকারিক, এনএইচএম), প্রাক্তন জিডিএমও-জেনারেল ডিউটি মেডিকেল অফিসার এবং চ্যাংলাং জেলায় টিকাদান অবস্থার উন্নতির জন্য রাজ্য স্বর্ণপদক প্রাপক এবং ডাঃ বণিকান্ত (ইনফ্লুয়েন্সার), একজন কনসালটেন্ট চিকিত্সক ও ডায়াবেটোলজিস্ট এবং একজন খ্যাতিমান ইউটিউবার যিনি চিকিত্সা বিজ্ঞান এবং সাধারণ মানুষের মধ্যে ব্যবধানটি দূর করতে লাইভ ওয়েবিনার এবং ভিডিও তৈরি করেন। এই উদ্যোগের মাধ্যমে বক্তারা ঝুঁকি, রোগ প্রতিরোধের পাশাপাশি রোগের মূল সমাধানগুলির বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।

 

হেপাটাইটিস বি এবং সি হল নিঃশব্দ অতিমারি, শিশু এবং প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে আক্রমণ করে এবং প্রতি বছর এইচআইভি / এইডস, ম্যালেরিয়া এবং যক্ষ্মার চেয়ে অনেক বেশি মানুষের মৃত্যু ঘটায়। হেপাটাইটিস বি`তে আক্রান্ত ৯০% এবং হেপাটাইটিস সি-তে ৮০% মানুষ জানে না যে তারা এই  জাতীয় রোগ নিয়ে বেঁচে আছেন, ফলস্বরূপ তাদের জীবনের কোনও এক পর্যায়ে মারাত্মক যকৃতের রোগ বা লিভারের ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা থাকে  এবং কিছু ক্ষেত্রে অজান্তেই অন্যদের মধ্যে সংক্রমণ ঘটায়, যদিও হেপাটাইটিস বি ভ্যাকসিন প্রতিরোধযোগ্য, এবং হেপাটাইটিস সি নিরাময়যোগ্য। এই উদ্যোগের মাধ্যমে, টিবিবিটির লক্ষ্য মানুষকে এবিষয়ে পদক্ষেপ নিতে উত্সাহিত করা, মারাত্মক রোগ-ঝুঁকিপূর্ণ উপাদানগুলি, প্রাথমিক লক্ষণ ইত্যাদির বিষয়ে তাদের সচেতন করা এবং প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা সম্পর্কে তাদের অবহিত করা হয়েছে।

 

ডাঃ টোপ যোমচা, ডিআরসিএইচও (জেলা প্রজনন শিশু স্বাস্থ্য আধিকারিক), এনএইচএম বলেন, “হেপাটাইটিসের তীব্রতা এবং এর বিরূপ প্রভাব সম্পর্কে ভবিষ্যত প্রজন্মকে শিক্ষিত করা জরুরি। তরুণরা আমাদের জনসংখ্যার ৭০%। তাই এই মারাত্মক রোগের প্রভাবগুলি বোঝা জরুরি কারণ এটি লিভারকে মারাত্মক ক্ষতি করতে পারে, ক্যান্সার ও অকাল মৃত্যুর কারণও হতে পারে। এই ওয়েবিনারের মাধ্যমে আমরা একটি প্রয়োজনীয় সংলাপ চালু করেছি এবং সাধারণ মানুষের মধ্যে এই রোগ সম্পর্কে সচেতনতা বাড়িয়েছি। আমরা আশা করি আমরা তরুণ প্রজন্মকে শিক্ষিত করার এবং এই রোগ নির্মূলের এক ধাপ এগিয়ে যাওয়ার লক্ষ্য পূরণে সফল হয়েছি।“

 

রেকিট-এর দক্ষিণ এশিয়ার এসভিপি মিঃ গৌরব জৈন বলেন, “সাম্প্রতিক অতিমারি পরিস্থিতি স্বাস্থ্য বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির এক শক্তিশালী হাতিয়ার হিসেবে সাধারণ মানুষের মধ্যে স্বাস্থ্য শিক্ষার ক্ষেত্রে লিটারেসিকে বাড়িয়ে তুলেছে। হেপাটাইটিস একটি অত্যন্ত প্রতিরোধযোগ্য রোগ যেবিষয়ে দুর্বল গ্রুপগুলিকে সঠিক সময়ে সঠিক তথ্য সরবরাহ করা হলে ফল পাওয়া যায়। হেপাটাইটিসে কিশোর-কিশোরীদের শিক্ষিত করার জন্য বোর্ডে বিশেষজ্ঞদের উপস্থিতির মাধ্যমে ডিউরেক্স-এর বার্ডস এবং বীস টক ক্যাম্পেইন কিশোর-কিশোরীদের সচেতনতা বাড়াতে এবং তাদের স্বাস্থ্যের প্রতি আগ্রহী করার মাধ্যমে তাদের সুরক্ষিত করার ক্ষেত্রে সহায়তা করবে।“

 

প্ল্যান ইন্ডিয়ার নির্বাহী পরিচালক মি. মোহাম্মদ আসিফ বলেন, “প্লান ইন্ডিয়া দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে যৌন ও প্রজনন স্বাস্থ্যসেবা এবং সমস্ত শিশু, কিশোর-কিশোরী এবং যুবতী মহিলা এবং পুরুষদের সুস্থতার জন্য কাজ করে চলেছে। হেপাটাইটিস সম্পর্কিত যে কোনও অসুস্থতা থেকে প্রতি ৩০ সেকেন্ডে একজনের মৃত্যু হয় - এবং যা কোবিড-১৯ অতিমারি`র দ্বারা উদ্ভূত পরিস্থিতির মতই সঙ্কটজনক। বিশ্ব হেপাটাইটিস দিবসে, আমরা কিশোর-কিশোরী এবং সম্প্রদায়ের সমস্ত সদস্যদের এই রোগ প্রতিরোধের কৌশল সম্পর্কে ধারণা দিয়ে অবহিত করার চেষ্টা করেছি, যা আমাদের কর্মসূচি, 'দ্য বার্ড অ্যান্ড বীস টক` এর অন্যতম স্তম্ভ। আমরা বিশ্বাস করি যে কিশোর ও তরুণদের তাদের নিজস্ব বিকাশে অংশগ্রহণের জন্য সক্ষম, সমৃদ্ধ ও ক্ষমতায়িত করতে হবে এবং তাই হেপাটাইটিস সম্পর্কিত অসুস্থতা সম্পর্কে তাদের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে জনস্বাস্থ্য বিষয়ক এই গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ।“

 

২০১৫ সালে ভাইরাল হেপাটাইটিসকে সাসটেইনেবল ডেভলাপমেন্ট গোল (এসডিজি)-এ অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল এবং ২০১৬ সালে এই রোগ নির্মূল করার জন্য বিশ্বের প্রথম বিশ্বব্যাপী হেপাটাইটিস স্ট্র্যাটেজিকে অনুমোদন দেওয়া হয়েছিল।

No comments:

Post a Comment


Debi Samman

Pages