আইটিসি লিমিটেডের ফ্যাবেল চকোলেটস লঞ্চ করল “ফ্যাবেল লা টেরে”, একটি অনন্য আর্থ পজিটিভ চকোলেট ভ্যারিয়েন্ট - Songoti

DEBI SAMMAN ADVERTISEMENT

আইটিসি লিমিটেডের ফ্যাবেল চকোলেটস লঞ্চ করল “ফ্যাবেল লা টেরে”, একটি অনন্য আর্থ পজিটিভ চকোলেট ভ্যারিয়েন্ট

Share This

 চকোলেটের এক অতুলনীয় অভিজ্ঞতার জন্য প্রশংসিত আইটিসি লিমিটেডের ফ্যাবেল চকোলেটস নিয়ে এল তাদের নতুন অফারিং ফ্যাবেল লা টেরে’। এ হল 100% আর্থ পজিটিভ চকোলেটের সৃজনশীল সংস্করণ। দীপাবলির প্রাক্কালে এই ব্র্যান্ড নিয়ে এল এক অনন্য চকোলেট ভ্যারিয়ান্ট। একটি ভার্চুয়াল ইভেন্টে এটি লঞ্চ করা হয়। নিরাপদ, স্বাস্থ্যবিধি মেনে তৈরি, সেই সঙ্গে পরিবেশের প্রতিও যত্নবান, নির্ভরযোগ্য ব্র্যান্ডগুলির থেকে এমন প্রোডাক্ট কেনার প্রতি ক্রেতাদের ঝোঁক বাড়ছে। ফ্যাবেল লা টেরে এই চাহিদার কথা মাথায় রেখেই তৈরি। বলা যেতে পারে, ফ্যাবেল লা টেরে তৈরির পিছনে কাজ করেছে এই কারণগুলিই।


 
অতিমারি চলাকালীন আমরা দেখেছি যে প্রকৃতি কীভাবে নিজেই নিজের ক্ষতগুলো সারিয়ে তুলছে। আমরা দেখেছি আগের চেয়ে তরতাজা বাতাস, আগের তুলনায় ঝকঝকে আকাশ। বর্তমান প্রজন্ম এত দূষণমক্ত পরিবেশ আগে দেখেনি। তাই এমন একটা অভিজ্ঞতা আরও বেশি করে নির্মল ও সবুজ এক পৃথিবীর প্রজোনীয়তা তুলে ধরেছে। পৃথিবীকে এই নতুন রপে দেখার পর মানুষ এবং বিভিন্ন সংস্থার মধ্যে এক সুস্থায়ী ভবিষ্যৎ তৈরির বাসনা কয়েক গুণ বেড়ে গেছে। এটা তখনই করা সম্ভব যখন কার্বন ফুটপ্রিন্ট কমিয়ে জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্গে মোকাবিলা করা যাবে।  

 

ক্রেতাদের বদলাতে থাকা পছন্দ এবং পরিবেশের যত্ন নেওয়ার সদিচ্ছার কথা ভেবে ফ্যাবেল এই আর্থ পজিটিভ চকোলেট বানিয়েছে, যাতে ক্রেতারা চকোলেট উপভোগ করতে করতে পাপবোধ না করেন। প্রকৃতি দ্বারা অনুপ্রাণিত ফ্যাবেল লা টেরে-এর ক্ষেত্রে পৃথিবীটাকে ভাবা হয়েছে প্রালিন ফরম্যাটে। ইদুক্কি পাহাড় থেকে পাওয়া ভারতীয় কোকো এবং কর্নাটক থেকে পাওয়া মধু, এই দুই প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে এটি তৈরি হয়েছে। 100% ইন্ডিয়ানইন্ডিয়ান অরিজিন চকোলেট দিয়ে হাতে গড়া এই চকোলেটের ভিতরে 33% মধু।

 

ফ্যাবেল-এর মাস্টার চকোলেটিয়াররা অনন্য ব্লেন্ড এবং ফ্লেভারের জন্য পরিচিত। তাদের হাতে গড়া এই চকোলেটের সহজতা এমন এক আপোসহীন অভিজ্ঞতা দেয় যা ছুঁয়ে যায় আপনার মন-প্রাণ। ভারতীয় কোকো বিন একটু টক টক এবং মুখে দেওয়ার পর একটু বেশি তিতকুটে লাগে। কর্নাটকে মধু আবার রয়েছে ফুলের মতো সুগন্ধ। এই চকোলেটে নিপুণ ভাবে এই দুই স্বাদের মিশ্রণ ঘটানো হয়েছে, যা একে অপরের পরিপূরক এবং এই চকোলেটে কামড় দিলে দুটি প্রাকৃতিক স্বাদই ভাল ভাবে টের পাওয়া যায়।  

 

ফ্যাবেল লা টেরে যেন চকোলেট দিয়ে তৈরি এক টুকরো পৃথিবী। এর খোল তৈরি 100% ডার্ক চকোলেট দিয়ে। ভিতরে রয়েছে কোকো এবং মধুর মিশ্রণ। এ যেন পৃথিবীর প্রতিরূপ, যেখানে জলের প্রাচুর্য, যার ৩/৪ অংশই জল দিয়ে ভরা। মধু অনেক কম তাপমাত্রা কিংবা ফ্রিজেও তরল অবস্থায় থাকে ফলে এমন এক চকোলেট তৈরির ক্ষেত্রে এটাই আদর্শ উপাদান।

 

পথচলা শুরুর পর থেকেই ফ্যাবেল কার্বন ফুটপ্রিন্ট কমানোর চেষ্টা করে গেছে। তা সে কাছেপিঠের কোনও জায়গা থেকে রসদের বন্দোবস্ত করা হোক কিংবা উৎপাদন অথবা সরবরাহের প্রক্রিয়া কার্বন নিঃসরণ কমানো। সব সময় ন্যূনতম উপাদান ব্যবহারের উপর জোর দেওয়া হয়েছে। এর ফলে পরিবহণের দূরত্ব কমেছে, চকোলেট প্রোসেসিং/ম্যানুফ্যাকচারিংয়ের পদ্ধতি কমেছে/বাদ দেওয়া গেছে। প্যাকেজিং মেটিরিয়ালের জোগান দেওয়া হয় কোম্পানির বিশাল বনায়ন প্রকল্প থেকে, যা সবুজায়নে সাহায্য করে আর বাতাস থেকে কার্বনের পরিমাণ কমায়।

 

পরিবেশবান্ধব এবং সুস্বাদু, এই দুটো ছাড়াও এই চকোলেটের রয়েছে আরও গুণ। এতে গ্লুটেন নেই, বাদাম নেই, ল্যাক্টোজ নেই, নেই কোনও কৃত্রিম উপাদান, কোনও প্রিজার্ভেটিভ এবং এটি নিরামিষ প্রোডাক্টও বটে।

 

এই লঞ্চ প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে আইটিসি লিমিটেডের - চকোলেট, কফি, কনফেকশনারি এবং ক্যাটেগরি ডেভেলপমেন্ট - ফুডস-এর সিওও শ্রী অনুজ রুস্তগি বলেন, ফ্যাবেলের দর্শন হল চকোলেটের এক অতুলনীয় এবং অনন্য অভিজ্ঞতা প্রদান করা। বর্তমান পরিস্থিতিতে পরিবেশ রক্ষায় প্রয়োজনীয়তাকে আরও প্রকট করেছে এবং এর গুরুত্বটাও আমরা বুঝতে পারছি। তাই আমাদের চিন্তাভাবনা, পদক্ষেপ একটা সুস্থায়ী পরিবেশ গড়ার লক্ষ্যে হওয়া উচিত। ফ্যাবেল আর্থ হল প্রকৃতির জন্য কিছু করার লক্ষ্যে আমাদের প্রথম পদক্ষেপ। আমরা আশাবাদী যে ক্রেতারা এই উদ্যোগে আমাদের পাশে থাকবেন।

 

এই বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে শ্রী মহেন্দ্র বারভেজেনারেল ম্যানেজার (প্রোডাক্ট ডেভেলপমেন্ট)ফুডস ডিভিশন, আইটিসি লিমিটেড/ফ্যাবেল মাস্টার চকোলেটিয়ার বলেন, ফ্যাবেল আর্থ-এর অনন্যতা হল, এটি শুধুমাত্র দুটো উপাদান দিয়ে তৈরি, এর রসদ যে ভাবে জোগাড় করা হয় এবং এটা বানানোয় শিল্প-নৈপুণ্য।  এই প্রোডাক্ট হল ফ্যাবেলের সার্বিক দক্ষতার প্রমাণ। এটি সফল ভাবে চকোলেট খাওয়া এক হৃদয়স্পর্শী অভিজ্ঞতা প্রদান করে আর সমগ্র চকোলেট ইন্ডাস্ট্রিকে এক নতুন দিশা দেয়। আমরা গর্বিত, আরও এক বার অনন্য অভিজ্ঞতা প্রদান করে যা চকোলেট দিয়ে তৈরি করা পৃথিবীর ছোট্ট সংস্করণ আর সেই সঙ্গে আর্থ পজিটিভও বটে। 



ফ্যাবেল লা টেরে–এর এই লঞ্চ এক সুস্থায়ী পরিবেশ এবং পরিবেশের দিকে নজর দেওয়ার প্রতি আইটিসি লিমিটেডের দায়বদ্ধতার অঙ্গ বলা যেতে পারে। এটা গর্বের বিষয় যে আইটিসি আন্তর্জাতিক স্তরে স্বীকৃতি পেয়েছে কার্বন পজিটিভ (এক টানা ১৫ বছর), ওয়াটার পজিটিভ (পরপর ১৮ বছর) এবং সলিড ওয়েস্ট রিসাইক্লিং পজিটিভ (শেষ ১৩ বছর) হওয়ার।

 

১০টি ফ্যাবেল লা টেরে প্রালিনের এক বাক্সের দাম ১৫০০ টাকা। প্রাথমিক ভাবে এটি প্রথম সারির ছটি মেট্রো শহরে অর্ডার দেওয়ার ভিত্তিতে পাওয়া যাবে।

No comments:

Post a Comment


Debi Samman

Pages