রবীন্দ্রনাথ | ডাঃ নীলাঞ্জন চট্টোপাধ্যায় | সাহিত্যগ্রাফি - Songoti

রবীন্দ্রনাথ | ডাঃ নীলাঞ্জন চট্টোপাধ্যায় | সাহিত্যগ্রাফি

Share This

পঁচিশে বৈশাখের ভোর শুরু হয় এক উৎসবের বাতাস নিয়ে -
সে বাতাসে মিশে থাকে শুধু আনন্দের কলতান, হে বিশ্বকবি।

প্রতিটি মুহূর্ত তোমার উপস্থিতিতে ভাস্বর -
বিরহে, বিষন্নতায়, আনন্দে, প্রাপ্তিতে, ভালবাসা,
জীবনের সব মুহূর্ত গুলি যেন তোমার
গানে নিজেকে মেলে ধরেছে,
কবিতায় জীবনের ধুসর, রঙিন অবয়ব।

ডাকঘরের অমলকে আমাদের খুব চেনা মনে হয় -
আমরাই সেই অমল, যে বসে আছে আজ
রাজার চিঠি পাবে বলে-
যে প্রতীক্ষায় আছে সুধার জন্য ;
যে তার ঘরকেই আজ পৃথিবী রূপান্তরিত করে নিয়েছে।

বন্দীত্বের এই যন্ত্রনা তার হৃদয়ের গোপন কুঠুরিতে
অশ্রুপাত করে -
আজ লাখো লাখো অমল ছূটে আসছে
গ্রাম, শহর, পাহাড়, মরুভূমির দুর্গম আঙিনা থেকে -
তোমার কাছে, শুধু তোমার কাছে রবিঠাকুর,
দানবের হাত থেকে তাদের পরিত্রাণ করবার আকূতি নিয়ে-।

তারা সবাই  আসছে আজ অমল হয়ে,
একটা অদ্ভুত বিশ্বাস কে বুকে চেপে ধরে -
যে বিশ্বাস বলে, দানবীয় মারীর  অত্যাচার থেকে
প্রতিটি জীবনের ত্রাতা হয়ে
অসুস্থ পৃথিবীর সবটুকু জরা আর মারী যে তুমি হরন করতে পার রবীন্দ্রনাথ।

এই বিশ্বাসে আজ প্রতিটি হৃদয় যেন আন্দোলিত হয়ে চলেছে আজ ;
একটু বিবর্ণ পঁচিশের বৈশাখের দেওয়ালে,
তোমাকে ঘিরে আজ মননে এক অন্যরকম হিল্লোল-
যে মন ভরে আছে এক বাঁধন মুক্তির বিশ্বাসে,
কারন তুমি যে আমাদের সব অনুভূতি আর জীবনের সব পরিচ্ছেদ গুলি
রচনা করে রেখেছো, হে রবীন্দ্রনাথ।। 

No comments:

Post a Comment

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here

Pages