উচ্চমাধ্যমিকে রাজ্যে যুগ্মভাবে দশম চাঁচলের আরজু সুলতানা - Songoti

উচ্চমাধ্যমিকে রাজ্যে যুগ্মভাবে দশম চাঁচলের আরজু সুলতানা

Share This
দেবাশিস ঘোষ , চাঁচল : মালদহ জেলার চাঁচল সিদ্ধেশ্বরীর ইনস্টিটিউশনের বিজ্ঞান বিভাগের  ছাত্রী  আরজু সুলতানা ৪৮৬ নম্বর পেয়ে উচ্চমাধ্যমিকে রাজ্যে যুগ্মভাবে দশম স্থান অধিকার করেছে । তার এই সাফল্যে এলাকা জুড়ে তৈরি হয়েছে খুশির আবহ। 
জানা গেছে , মেধাবী ছাত্রীটি বাংলায়  ও ইংরেজি দুটি বিষয়েই পেয়েছে ৯৭, পাশাপাশি গণিত ও রসায়নে পেয়েছে  ৯৮ নম্বর। আর জীববিদ্যায় পেয়েছে ৯৬ নম্বর। ছাত্রীটি পরিবারসহ থাকেন চাঁচলের খেলেনপুরে। বাবা মহম্মদ আনোয়ার হোসেন বি এস এফ - এ কর্মরত। মা হাসনারা খাতুন গৃহবধূ । আরজুরা তিন বোন। মেজো বোন আজিজ সুলতানা । দশম শ্রেণির পড়ুয়া । ছোট বোন আফিয়া সুলতানা। তার বয়স ৪বছর। 
 তার এই রেজাল্টে বাবা ও মা দুজনেই ভীষণ খুশি। মা হাসনারা বলেন ,  “পড়াশোনায় প্রতি অদম্য টানের ফলেই মেয়ের এই রেজাল্ট হয়েছে। ”  

যদিও মেধাবী এই ছাত্রী আরজু বলেন , “ভালো ফল হবে আশা করেছিলাম । কিন্তু রাজ্যের মেধা তালিকায় নাম থাকবে ভাবিনি। বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও গৃহ শিক্ষকেরা পড়াশোনার ব্যাপারে যথেষ্ট সাহায্য  করেছেন।  ”                  

ছাত্রীটি আরও জানিয়েছে , মোট ৮ গৃহশিক্ষক ছিলেন। ম্যাথ ও ফিজিক্স -এ দুজন করে গৃহ শিক্ষক ছিলেন। অন্যান্য বিষয়গুলির জন্য ছিলেন একজন করে গৃহ শিক্ষক । দিনের বেলাটুকু স্কুল আর টিউশনে  চলে যেত । তাই রাত জেগেই পড়া করতে হতো।
পড়াশোনার পাশাপাশি আর কোন বিষয়ে কি আগ্রহ রয়েছে? ছাত্রীটি মাথা নেড়ে জানালেন , “ পড়াশোনার ফাঁকে মাঝেমধ্যে পরিবারের সকলের জন্য একটু রান্না করতাম ।আর গান শুনতাম । অবসরে এটুকুই করার সুযোগ পেতাম।” জীবনের লক্ষ্য কি ? ছাত্রীটি  জানায় “ চিকিৎসক হতে চাই ।”
 বিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষিকারা বলেন , পড়াশোনার প্রতি বরাবরই মনোযোগী ছাত্রীটি ।  মনোযোগই তার এই সাফল্যের চাবিকাঠি । তার সোনালি ভবিষ্যৎ কামনা করি।।

No comments:

Post a Comment

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here

Pages