নতুন পরিচয়ে সিনেমায় ফেরাটা বেশ আনন্দ দেয় : অংশু বছ - Songoti

DEBI SAMMAN ADVERTISEMENT

নতুন পরিচয়ে সিনেমায় ফেরাটা বেশ আনন্দ দেয় : অংশু বছ

Share This

প্রিয়া, কলকাতাঃ এক সময় বাংলা ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে/চলচ্চিত্র শিল্পে ভালো অভিনয়ের জন্য শিশুশিল্পীদেরও খুব খ্যাতি ছিল। যেমন, 'সোনার কেল্লায়' 'মুকুল' কিংবা জয় বাবা ফেলুনাথ-এর  'রুকু'। শিশুশিল্পীরা নামিদামী অভিনয় শিল্পীদের সাথে সমানতালে অভিনয় করেছে। সেটি দেখিয়েছে নাটের গুরু ও বন্ধনের শিশুশিল্পী অংশু বছ। এই অংশুকে আমরা অনেক সিনেমাতেই অভিনয় করতে দেখেছি। এর মধ্যে বিখ্যাত কয়েকটি হল সিনেমা হলো: এমএলএ ফাটাকেষ্ট, ওয়ান্টেড, অগ্নিপথ ও নাটের গুরু। 

এরই মধ্যে অনেক সময় পেরিয়ে গেছে, গঙ্গা-ভাগীরথীতে অনেক জল গড়িয়েছে। ততদিনে আমাদের সবার প্রিয় সেই ছোট্ট শিশুশিল্পী অংশুও আজ বড় হয়ে গেছে। তবে বড় হয়েও সে দোর্দণ্ড দাপটে অভিনয় করছে। বড় অংশুর অভিনীত তেমনি একটি সিনেমা জতুগৃহ, যেটির শুটিং চলছে/কেবলই শেষ হল। সে আলোকেই আমাদের তাঁর সাথে আমাদের আলাপচারিতা। ........ সাথে ..... ক্যামেরায় ..........।  

১) সিনেমায় অভিনেতা না হলে আমরা অংশুকে কিভাবে দেখতাম? 

উত্তর: আমি বরাবরই অভিনেতা হতে চেয়েছিলাম। আমার ফ্যামিলিতে কোনো ফিল্মি ব্যাকগ্রাউন্ড নেই। তাই অনেকটা স্ট্রাগল করতে হয়েছে। তবে পরিবার ও ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির কাছ থেকে অনেক সাপোর্ট পেয়েছি। ফলে আমি আজকের এই জায়গায় আসতে পেরেছি। তবে হ্যাঁ অভিনয়ের পাশাপাশি যদি বলতে হয়, এখনো ক্রিকেটের মাঠে ২২ গজের পিচেই আমাকে পেতে পারো। কারণ ক্রিকেট আমার অন্যতম প্যাশন। 


২) অবসর কিভাবে কাটে?

উ: অবশ্যই ক্রিকেট খেলে। এছাড়া সিনেমা দেখে, মোবাইল নিয়ে সারাক্ষণ সার্চ করতে কিংবা বন্ধুদের সাথে ঘুরতে যেতে ভালো লাগে। ক্রিকেট আমি এতটাই ভালবাসি যে পুরনো ম্যাচগুলোর হাইলাইটস দেখেও সময় কাটাতে পারি । 


৩) খেতে ভালোবাসো না ঘুরতে যেতে? পছন্দের ডেস্টিনেশন কোনটি? 

উ: বেসিকালি ঘুরতে ঘুরতে খেতে খেতে (হাসি)। পছন্দের ডেস্টিনেশন বলতে আমি পাহাড়কেই বেশি ভালোবাসি। তবে সামনে দুবাই যাওয়ার ইচ্ছে আছে । 


৪) জীবনে কতবার প্রেমে পড়েছ? 

উ : আমি তো রোজ রোজ প্রেমে পড়ি (হাসি)।  প্রেমে পড়ার কি কোন পার্টিকুলার দিন থাকে? তবে হ্যাঁ, সিরিয়াস প্রেম আগে হত .....। 


৫) আজ অবদি অভিনীত চরিত্রগুলোর মধ্যে কোন চরিত্রটি সবচেয়ে প্রিয়? 

উ: কোনো এক মহান ব্যক্তি বলেছিলেন তোমার প্রিয় চরিত্র হওয়া উচিত তোমার আগামী অভিনীত চরিত্র। তবু যদি বলতেই হয়, তাহলে আমি বলব আড্ডা টাইমসের ওয়েব সিরিজ মন্সুন মেলোডিজের কুনাল চরিত্রটি আর ছোটবেলার সিনেমার মধ্যে রাজু আঙ্কেলের সেই চরিত্রটি যেটি করে আমি পুরস্কারও পেয়েছিলাম। 


৬) একটা সময় শিশুশিল্পী হিসেবে দাপিয়ে অভিনয় করার পর ইন্ডাস্ট্রি থেকে ব্রেক নিয়েছিলে, এর কারণটা কি? 

উ: প্রথমত শিশুশিল্পী হিসেবে আমি আমার নামটা এস্টাবলিশ করতে চাইনি। তাই অনেকটা সময় গ্যাপ দিয়ে আবার ফিরে আসি যখন পছন্দের স্ক্রিপ্ট পাই। একটা সময় পড়াশোনা, জিম, নাচ এসব নিয়েও অনেক ব্যস্ত হয়ে পড়েছিলাম। সেজন্যও অভিনয়ে বিরতি পড়েছিল। তবে কি জানো, আমার মনে হয় এই যে একটা সময়ের ব্যবধান তৈরি হলো এতে অনেক জনের কাছে আমি নতুনভাবে পরিচিতি পেলাম, এটাই আমার কাছে আনন্দের। 


৭) সম্প্রতি জতুগৃহ সিনেমার শুটিং শেষ করে ফেলেছ। এখন সামনে কি কি কাজ আসতে চলেছে? 

উত্তর: এখন আমার হাতে বেশ কিছু কাজ পেন্ডিং আছে। যেমন, ডিজি প্লেক্সের একটা ওয়েব সিরিজে কাজ করার কথা হচ্ছে। এছাড়া একটা শর্ট ফিল্ম ও আরেকটা বড় ছবি মুক্তি পাওয়ার অপেক্ষায় আছে। 


৮) মানুষ হিসেবে নিজেকে দশের মধ্যে কত নম্বর দেবে? 

উ: ১১ (হাসি)। কারণ আমি যা-ই করি সেটাতে হান্ড্রেড পার্সেন্ট দেওয়ার চেষ্টা করি।

No comments:

Post a Comment


Debi Samman

Pages