কোরোনা সচেতনতা'ই মূল লক্ষ্য, তাই পূজো'র জজিয়তি'র নয়া পদক্ষেপ রাজ্য সরকারের - Songoti

DEBI SAMMAN ADVERTISEMENT

কোরোনা সচেতনতা'ই মূল লক্ষ্য, তাই পূজো'র জজিয়তি'র নয়া পদক্ষেপ রাজ্য সরকারের

Share This

 পায়েল পাল, কলকাতাঃ দেশ থেকে দেশান্তরে বাঙ্গালী'র মূল উৎসবকে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে এগিয়ে দিতে ২০১৩ সাল থেকে পশ্চিমবঙ্গ সরকার চালু করে বিশ্ব বাংলা শারদ সম্মান। তবে কোরোনা আবহাওয়ায় না না রকম মতভেদ থাকলেও শারদ উৎসবে যে বাঙ্গালী কোনো অংশ পিছিয়ে নেই তা বোঝা যাচ্ছে পরতে পরতে। কাজেই সমস্ত মন্তব্যকে পিছনে ফেলে বাঙ্গালী মনন ও আবেগকে সম্মান দিয়েই কিছুদিন আগেই মুখ্যমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছিলেন জাঁকজমক কম হলেও উৎসব হবে এবং শারদ সম্মানও হবে। যেমন কথা তেমন কাজ, সদ্য কিছুদিন আগেই হয়ে যাওয়া সাংবাদিক সম্মেলনে মন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন জানিয়েছেন "এই শারদোৎসবকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলতে এবারেও কলকাতা ও পার্শ্ববর্তী এলাকা, ২২টি জেলা, বিভিন্ন রাজ্য এবং দেশ-বিদেশের পুজোগুলোর মধ্যে নির্বাচিত কিছু পুজোকে বিশ্ব বাংলা শারদ সম্মান- ২০২০ প্রদান করা হবে। কলকাতা ও সংলগ্ন এলাকা অর্থাৎ কলকাতা পৌর নিগম, দক্ষিন দমদম পুরসভা, বরাহনগর পুরসভা, বিধাননগর পুরনিগম এলাকায় যে সকল বিষয়ে বিশ্ব বাংলা শারদ সম্মান প্রদান করা হবে, সেগুলি হলো-


সেরা প্রতিমা, সেরা মণ্ডপ, সেরা ভাবনা, সেরা আলোকসজ্জা, সেরা পরিবেশ বান্ধব, সেরা আবিষ্কার, সেরা সমাজ কল্যাণমূলক পুজো, সেরা কোভিড সচেতন পুজোসেরা শিল্পী, সেরা ঢাকেশ্রী, সেরা বিশ্ব বংলা ব্রান্ডিং, সেরার সেরা

প্রতিবারের মতো এবারেও  ষষ্ঠীর দিনে ফলাফল ঘোষিত হবে। পুজো পরবর্তী সময়ে এই প্রতিযোগিতার বিজয়ী পুজো কমিটিগুলিকে পুরস্কৃত করা হবে। ১০ অক্টোবর বিকেল ৫টা থেকে ১৬ অক্টোবর ২০২০ পর্যন্ত অনলাইনে আবেদনপত্র পাওয়া যাবে এবং সেই সময়সীমার মধ্যে জমাও দেওয়া যাবে। বিদেশের পুজোগুলিও অনলাইনেই আবেদন করবে এবং এইভাবে তাদের পুরস্কৃত করা হবে। নিউ নর্মাল পরিস্থিতিতে দুটি বিষয় বিশ্ব বাংলা শারদ সম্মান পুরস্কারে অভিনব এবং প্রশংসনীয়। তা হলো সেরা কোভিড সচেতন পুজো বিভাগটি প্রতিযোগিতায় অন্তর্ভুক্ত করা এবং ভার্চুয়াল মিডিয়ার সাহায্য নিয়ে কোভিড পরিস্থিতিতেও পুজোর আনন্দ থেকে মানুষকে বঞ্চিত না করে এবং শিল্প সুষমাকে স্বীকৃতিদানের সচেতনতার এই উদ্যোগ সত্যিই অভিনন্দনযোগ্য।
বিশদ জানতে www.egiyebangla.gov.in এবং www.wb.gov.in এই দুই ওয়েবসাইটে নজর রাখুন।

No comments:

Post a Comment


Debi Samman

Pages