ভালো সিনেমা বানিয়েও কলকাতায় হল পাচ্ছেন না জাতীয় পুরস্কারজয়ী পরিচালক! - Songoti

DEBI SAMMAN ADVERTISEMENT

ভালো সিনেমা বানিয়েও কলকাতায় হল পাচ্ছেন না জাতীয় পুরস্কারজয়ী পরিচালক!

Share This
এই সিনেমার গান যখন সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ্যে আসে তখন শ্রোতা-দর্শকদের ভালোবাসার কোনও অন্ত ছিল না। লোক মুখে ফিরছে সেই সব গান। এ ছবির গল্প, কাস্টিং এবং সর্বোপরি জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত পরিচালকের উপর অগাধ ভরসা ও ভালোবাসা থেকেই আগেভাগে সকলে ২০ সেপ্টেম্বরের কাজের তালিকা ঠিক করে নিয়েছিলেন। কিন্তু মনে হয় না বঙ্গবাসীর সেই সাধ পূরণ হবে। বুধবার হল তালিকা হাতে পাওয়ার পর পরিচালক প্রদীপ্ত ভট্টাচার্য দেখেন কলকাতার কোনও সিনেমা হলেই ঠাঁই দেওয়া হয়নি 'রাজলক্ষ্মী ও শ্রীকান্ত'কে। সোদপুর এবং বারুইপুরের দুটি হল ছাড়া আশ্চর্যজনক ভাবে আগরতলা ও শিলিগুড়ির দুটি হলে এই সিনেমা ঠাঁই পেয়েছে। একরকম হতাশা নিয়েই ফেসবুকে পরিচালক একটি পোস্ট দেন। তবে তিনি যে হাল ছাড়তে রাজি নন, সেকথাও স্পষ্ট করেই জানিয়ে দিয়েছেন। একই কথা বললেন রাজলক্ষ্মী জ্যোতিকা জ্যোতিও। গতকাল হল সংকটের খবর পেয়ে তিনি খুবই ভেঙে পড়েছিলেন, কিন্তু এখন যেভাবে মানুষ পাশে দাঁড়াচ্ছেন, এগিয়ে আসছেন তাতে তাঁর মনে হয়েছে এ যেন ঠিক 'সাধারণ মানুষ বনাম শাসক শ্রেণি সংগ্রাম'।


হল সংকটে বাংলা সিনেমা বিষয়টি নতুন নয়। সমপ্রতি পরিচালক দেবও তাঁর পাসওয়ার্ডের মুক্তি নিয়ে একই কথা বলেছেন। কিন্তু মাল্টিপ্লেক্স বা সিঙ্গল স্ক্রিন কোথাও ঠাঁই হল না রাজলক্ষ্মী ও শ্রীকান্তর। বাংলা সিনেমা এবং বাঙালির পক্ষে যা খুবই লজ্জার। যে সিনেমার মুখ্য ভূমিকায় থাকেন ঋত্বিক চক্রবর্তী, রাহুল বন্দ্যোপাধ্যায়, অপরাজিতা, জ্যোতিকা জ্যোতি, সায়নের মত অভিনেতারা। প্রসঙ্গত শুক্রবার মুক্তি পাচ্ছে ‘গোয়েন্দা জুনিয়র’, ‘১৭ সেপ্টেম্বর’, ‘প্রস্থানম’, ‘দ্য জ়োয়া ফ্যাক্টর’, ‘র‌্যাম্বো: লাস্ট ব্লাড’-সহ মোট ১১টি ছবি। প্রতিটিই কমবেশি হল পেয়েছে কলকাতায়। যার মধ্যে কয়েকটি বাংলা ছবি টাকা দিয়ে হল পেয়েছে বলে শোনা যাচ্ছে।


বৃহস্পতিবার মাল্টিপ্লেক্সের কর্তাদের সঙ্গে মিটিংয়ে বসার কথা পরিচালকের। যদি একটিও শো না পাওয়া যায় তাহলে আপাতত ছবি মুক্তি স্থগিত থাকবেই বলে জানান পরিচালক।


বাংলা এবং বাঙালির শুভ বুদ্ধির উদ্রেক হবে এমন আশা অনেকেই রাখছেন। আর তাই বারুইপুর হোক বা রথীন্দ্র ভিড় জমাবেন বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকেই জানিয়েছেন।

সূত্র ঃ ইন্ডিয়াটাইমস

No comments:

Post a Comment


Debi Samman

Pages