" আমি ডিরেক্ট করছি কোনো সিনেমা, এটা শুনেই মা অবাক " - তেযশ গান্ধী - Songoti

" আমি ডিরেক্ট করছি কোনো সিনেমা, এটা শুনেই মা অবাক " - তেযশ গান্ধী

Share This
তেযশ গান্ধী, ফ্যাশন ইন্ডাষ্ট্রিতে নামটাই যথেষ্ট। তাঁর তৈরী পোশাক কত মানুষকে অলংকৃত করে তাঁর কোনো লিষ্ট বের করাটাই কঠিন। সম্পূর্ন নিজের জগত থেকে বেরিয়ে ফ্যাশন ডিসাইনার সদ্য একটি মিউসিক ভিডিও'র ডিরেক্ট করেছেন এবং তার সাফল্য আকাশ ছোঁয়া। এছাড়াও মিনিবক্স অফিসের একটি ফিল্ম ফেস্টিভেল এ  তেযশ গান্ধী বেস্ট ডিরেক্টরের সম্মানেও সম্মানিত হয়েছেন। তারই অবসরে কথা বলে নিলাম আমরা সঙ্গতি টিম ।।


ফ্যাশন ডিসাইন থেকে সিনেমা, কিভাবে ?
(হাসি) আমাদের এক আমেরিকান বন্ধু রোবাটো কোরিওস, অভিষেক, চীরদীপ এদের জন্যই আমি এক্সপেরিমেন্টের সুযোগ পেয়েছি।  একদিন রোবাটো আমেরিকা থেকে কলকাতা এলো তাঁর নতুন গান নিয়ে। আমার স্টোরে বসে অভিষেক চীরদীপ আমাকে গানটি শোনালো। আমার ভালোই লাগল।

তারপর......
তারপর, বলল তুমি বলো তোমার কেমন লাগল? আমি বললাম, তুমি যদি বলো একজন ডিসাইনার হয়ে মিউসিক নিয়ে বলতে আমি বলতে পারব না। ওরা ( কোরিওস, অভিষেক, চীরদীপ) বলল তুমি তো ফ্যাশন নিয়ে কাজ করতে মিউসিক তো একটা পার্ট তো থাকেই, তুমি বলো তোমার কেমন ফিল হচ্ছে?

তোমার কী অনুভূতি হলো?
যখন আমি মিউসিকটা শুনলাম মনে হল ট্র্যাভেল - লাভ - প্যাশন - কম্পেশন ইন্টেরেস্টিং কিছু। ওরাও আমার সাথে একমত হল, বলল হ্যাঁ আমরাও এই সাবজেক্টটা নিয়ে কাজ করব। হ্যাঁ এটা নিয়ে কাজ করো। সাথে সাথে রোবাটো অভিষেক বলল তুমি (তেযশ) কিছু আইডিয়া দাও। যেটা নিয়ে ভিডিও আমরা রাখতে পারি। এটা তো আমার মনে হয় ট্র্যাভেল এবং লাভ। আমার মনে হল লাভ টা সব দিক থেকেই দেখানো যায়।।


গল্পের ফ্লেভর কী নিয়ে ?
একটা কুকুরে সাথে তাঁর মালিকের ভাব কিংবা বন্ধু বন্ধু  ভাব কিংবা মা-সন্তানের ভাব সবকিছু পাওয়া যাবে এখানে। তবে এখানে সবটাই নর্মালি দেখানো হয়েছে অভিনয় কিছু করিনি আমরা। সাধারনত যা সহজ সেটাই আমরা দেখিয়েছি। এছাড়া কলকাতা শহর বলতে যা বোঝায় সেই পুরোনো কলকাতা - হাওড়া ব্রিজ - ট্রাম - রিক্সা - ভিক্টোরিয়া বাদেও যে কলকাতা আপগ্রেড করেছে, আমরা সেই কলকাতাকেই তুলে ধরার চেষ্টা করেছি ।।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here

Pages